স্যানিটারি পণ্যে সম্পূরক শুল্ক অব্যাহতির প্রস্তাবব্যবসাবান্ধব কাস্টমস ও ভ্যাট কাঠামো চান উদ্যোক্তারাকোম্পানি করদাতাদের রিটার্ন জমার সময় বেড়েছে দুই মাসরিটার্ন না দেওয়া বাড়িওয়ালাদের খুঁজতে বিশেষ অভিযান: এনবিআররেমিট্যান্সের ওপর কর প্রত্যাহারের দাবি
No icon

কর আদায় ব্যবস্থা সহজ করতে চায় এনবিআর

স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের জন্য কর আদায়ের ওপর একটা চাপ থাকবে। এ অবস্থায় কর আদায় ব্যবস্থাপনা সহজীকরণের ওপর জোর দিচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেছেন, কর আদায় সহজীকরণের বিষয়েও সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। বিদেশি বিনিয়োগে উৎসাহিত করতে এ প্রক্রিয়া আরও সহজীকরণ করতে হবে। এক্ষেত্রে অন্য দেশগুলোর তুলনায় আমরা পিছিয়ে আছি।রোববার (১২ মার্চ) আগারগাঁওয়ে এনবিআর আয়োজিত প্রাক-বাজেট আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ট্যাক্স, ভ্যাট ও কাস্টমস সব খাতে ই-পেমেন্ট করার নির্দেশনা আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) থেকে দেওয়া হয়েছে। তারা আমাদের ভালোর জন্য বলে সবকিছু। সেসব আমরা দ্রুত করতে পারি না, তাই আইএমএফের একটা তাগিদ থাকে।

তিনি বলেন, খসড়া আয়কর আইনেও কর পরিশোধের প্রক্রিয়া সহজীকরণের অনেক বিষয় আনা হয়েছে। করজাল বৃদ্ধির প্রচেষ্টা হিসেবে রিটার্ন ফরম সহজ করা এবং অনলাইনে জমা দেওয়ার বিষয়ে কাজ করছি আমরা।করোনা মহামারি পরবর্তীকালে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে ব্যক্তি-শ্রেণির করদাতাদের ক্ষেত্রে করমুক্ত আয়ের সীমা ও আয়করের হার করদাতার জীবনযাত্রার ব্যয়ের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে ব্যক্তি-শ্রেণির করদাতাদের করমুক্ত আয়ের সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে ট্যাকসেস বার অ্যাসোসিয়েশন।এছাড়া মূলধনী বিনিয়োগকে উৎসাহিত করা, সম্পদ ও মূলধন পাচার রোধ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও ভবিষ্যতে অধিক রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যে অপ্রদর্শিত আয়কে সহজ শর্তে প্রদর্শনের সুযোগ দিয়ে ধারা-১৯ এ পুনর্বহাল করার প্রস্তাব করা হয়েছে।বাংলাদেশ ট্যাক্স ল ইয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন বৈশ্বিক ব্যবসা-বাণিজ্যের মন্দার কথায় মাথায় রেখে সব ক্ষেত্র ৭ দশমিক ৫ শতাংশ করপোরেট কর কমানোর প্রস্তাব দিয়েছে। বর্তমানে তালিকাভুক্ত কোম্পানি ২০ শতাংশ, তালিকাবহির্ভূত কোম্পানি ২৭ দশমিক ৫০ শতাংশ, তালিকাভুক্ত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ৩৭ দশমিক ৫০ শতাংশ, তালিকাবহির্ভূত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ৪০ শতাংশ, মার্চেন্ট ব্যাংক ৩৭ দশমিক ৫০ শতাংশ, সিগারেট কোম্পানি ৪৫ শতাংশ, মোবাইল অপারেটরে যথাক্রমে ৪০ ও ৪৫ শতাংশ করপোরেট কর বিদ্যমান।

বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন শিপিং এজেন্সি কমিশনের ওপর প্রদেয় উৎসে করের হার ৮ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব দিয়েছে।আজ সকালে অন্য একটি প্রাক-বাজেট আলোচনায় অ্যাসোসিয়েশন অব মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ (এমটব) ন্যূনতম কর ২ থেকে কমিয়ে ১ শতাংশ করার প্রস্তাব দিয়েছে।এছাড়া করপোরেট করের উচ্চহার কমানোর প্রস্তাব দিয়ে সংগঠনটি জানিয়েছে, দেশে সাধারণ করপোরেট ট্যাক্স হার অতালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য ২৭ দশমিক ৫ শতাংশ এবং তালিকাভুক্ত কোম্পানির জন্য ২০ থেকে ২২ দশমিক ৫ শতাংশ। অথচ জরুরি সেবা হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ মোবাইল খাতের জন্য উচ্চহারে করপোরেট কর দিতে হয়।এছাড়া ন্যূনতম কর সমন্বয় করা এবং অসমন্বয়কৃত অংক জের হিসেবে টানা, ক্যাপিটাল অ্যালাউন্স বা অবচয় ভাতা সমন্বয়, দ্বৈত কর পরিহার চুক্তি বাস্তবায়ন, ই-সিমসহ সব প্রকার সিম সরবরাহের ওপর ভ্যাট অপসারণ এবং সরকারি নিয়ন্ত্রক সংস্থাসমূহের ভ্যাট অপসারণের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। টেলিকম মেশিনারি, ইকুইপমেন্ট ও সফটওয়্যারের জন্য পৃথক এইচএস কোডের প্রস্তাব দিয়েছে এমটব।বাংলাদেশ বিড়ি মালিক সমিতি পৃথক প্রস্তাবে বিড়িতে শুল্ক ১৮ টাকা থেকে ন্যূনতম ২ টাকা কমিয়ে ১৬ টাকা করার দাবি জানিয়েছে। এছাড়া বিড়ির ওপর অগ্রিম আয়কর ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩ শতাংশ ও সরেজমিনে পরিদর্শন ছাড়া বিড়ি ফ্যাক্টরি তৈরির লাইসেন্স দেওয়া বন্ধ করার প্রস্তাবও দিয়েছে।