ভ্যাট ও আয়কর সনদ জুয়েলারি শো-রুমে প্রদর্শন করুন : বাজুসকরজাল সম্প্রসারণে এনবিআরের মহাপরিকল্পনা, ‘টার্গেট’ বাড়িওয়ালারাওজ্বালানি খাতে বকেয়া শুল্ককর ৫৫ হাজার কোটি টাকাবাড়বে ভ্যাট, বাড়তি দামের চাপে ভুগতে হবে ভোক্তাদের। অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ দাম বাড়াচ্ছে পাইপের
No icon

পরিবেশবান্ধব জ্বালানি উৎপাদনে কর সুবিধা দেওয়ার পরামর্শ

পোশাক শিল্পকারখানায় পরিবেশ রক্ষার প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে। দেশের পোশাক কারখানাগুলো থেকে প্রতিবছর যে বর্জ্য সৃষ্টি হচ্ছে, তা পুনঃপ্রক্রিয়াজাত করে চার বিলিয়ন ডলারের ব্যবসা হতে পারে। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে পরিবেশগত সুবিধা নিশ্চিত করে সবুজ শিল্প বিকাশে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায় থেকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে। গ্রিন এনার্জি বা পরিবেশবান্ধব জ্বালানি উৎপাদন উৎসাহিত করতে সরকার থেকে কর সুবিধা দেওয়া যেতে পারে।রোববার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাসটেইনিবিলিটি অ্যান্ড গ্রিন গ্রোথ ওয়ার্কিং কমিটির সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।সভার পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ বলেন আমরা ব্যবসায়ীদের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্যকে ক্ষতি না করে ব্যবসা করতে উৎসাহিত করে যাচ্ছি। ব্যবসায়ীদের অবশ্যই পরিবেশ রক্ষার প্রতি নজর দিতে হবে।বিল্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌস আরা বেগম সাসটেইনিবিলিটি অ্যান্ড গ্রিন গ্রোথ ওয়ার্কিং কমিটির তৃতীয় সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন সম্পর্কে অবহিত করেন।বিল্ডের ঊর্ধ্বতন গবেষণা সহযোগী মেহেদী হাসান বলেন, দেশে কার্বন নিঃসরণে তৈরি পোশাক খাতের অবদান ১৫ দশমিক ৪ শতাংশ এবং বস্ত্র খাতের অবদান ১২ দশমিক ৪ শতাংশ।